এইমাত্র পাওয়া :

‘রান আউটকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছেন পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান’

ক্রীড়া ডেস্ক: পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনের ঘটনা। বল সীমানা পেরিয়ে গেছে ভেবে রান না নিয়ে পিচের মধ্যে দাঁড়িয়ে সঙ্গীর সঙ্গে নিশ্চিন্তে কথা বলছিলেন আজহার আলী। ওই সময় সীমানার কয়েক গজ পেছনে থেমে থাকা বল ফিল্ডার কুড়িয়ে ফেরত পাঠালে উইকেটরক্ষক স্টাম্প ভেঙ্গে দেন। রানআউট হন আজহার আলী।

ওই সময় কেউ কেউ আজহারের এই রান আউটকে ক্রিকেটের সবচেয়ে হাস্যকর আউটের তকমা দিয়েছিলেন। আবার কারো কারো মতে, নির্বুদ্ধিতার সবচেয়ে বড় উদাহরণ ছিল আউটটি। সংবাদমাধ্যম থেকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম-সব জায়গাতেই পাকিস্তানি ক্রিকেটারের ওই রান আউট নিয়ে চলে ব্যঙ্গ-বিদ্রূপ। ওই আউটের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও একইভাবে রান আউটের শিকার হন পাকিস্তানি এই ক্রিকেটার। এবার প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড।

দুবাইয়ের মাঠে চলছিল দুই দলের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্ট। ইনিংসের ৭১তম ওভারে কিউই স্পিনার অ্যাজাজ প্যাটেলের বলটি মিড অনের দিকে ঠেলে দিয়েই দৌড় শুরু করেন আজহার। ওই সময় বলটি আদৌ কোনো ফিল্ডারের হাতে যাচ্ছে কি না অথবা নন স্ট্রাইক এন্ডের ব্যাটসম্যান ক্রিজের বাইরে বেরিয়েছেন কি না, সেদিকে কোনো খেয়ালই ছিল না তার। যতক্ষণে তিনি বিষয়টি বুঝতে পারলেন, ততক্ষনে আর ফিরে যেতে পারেননি। স্ট্রাইক এন্ডে পৌঁছানোর আগে টিম সাউদির থ্রো ধরে স্টাম্প ভেঙে দেন কিউই উইকেটরক্ষক বিজে ওয়াটলিং। রান আউট হন ৮১ রান করা আজহার।

প্রথম ম্যাচে হারের পর এই টেস্ট দিয়ে সিরিজে ফিরতে মরিয়া পাকিস্তান। তবে শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে স্বাগতিকরা। দলের হাল ধরেন আজহার ও হারিস সোহেল। এই দুজনের ব্যাটে ভালোভাবেই এগোচ্ছিল পাকিস্তান। কিন্তু দলীয় ১৫১ রানের সময় অভিজ্ঞ আজহারের এমন উদ্ভট রান আউট মেনে নিতে পারেননি সমর্থকরা।

তাই তো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে আজহারের সমালচনায় মাতেন পাকিস্তানি সমর্থকরা। একজন প্রশ্ন করে বলেন, ‘৬৮টি টেস্ট খেলা অভিজ্ঞ একজন ব্যাটসম্যান কীভাবে এমন বোকামি বারবার করতে পারেন?’ আরেকজন বলেন, ‘রান আউটকে শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছেন পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান।’

আট বছরের ক্যারিয়ারে এ নিয়ে সাত বার রান আউটের শিকার হন আজহার। এর মধ্যে তিন বারই আউটের ধরন ছিল উদ্ভট। তাই তো এক মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বারের মতো এমন রান আউটের শিকার হওয়া আজহারকে রান নেওয়ার ব্যাপারে কোর্স করানোর পরামর্শ দিয়েছেন কেউ কেউ। এমন রান আউটে অবশ্য নিজের কোনো দোষ দেখছেন না আজহার। তার মতে, এটা সহজ রানই ছিল। কিন্তু সোহেল সাড়া না দেওয়ায় সেঞ্চুরি থেকে ১৯ রান দূরে থাকতেই ফিরতে হয়েছে তাকে।

এ নিয়ে আজহারের ভাষ্য, ‘আমি জানি না সোহেলের মনে তখন কী চলছিল। এটা সহজ রানই ছিল। আসলে ক্রিকেটে এমনটা হয়ই।’এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দ্বিতীয় দিনের খেলা চলছিল। মধ্যাহ্নভোজের বিরতির আগে পাকিস্তানের সংগ্রহ চার উইকেটে ২৭৪ রান। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন হারিস সোহেল। তিনি ১১০ রানে অপরাজিত ছিলেন। ৫২ রান নিয়ে তাকে সঙ্গ দিচ্ছিলেন বাবর আজম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



@২০১৭ সর্বস্বত্ব স্বত্বা‌ধিকার সংর‌ক্ষিত.
প্রকাশক ও সম্পাদক:
এম এম আব্দুল্লাহ আল মামুন
ইমেইল- dearsabdullah@gmail.com
ওয়েবসাইট- dearsbd24.com
সম্পাদকঃ 09638 948404

সম্পাদনা ও প্রকাশনাঃ
হেড অফিসঃ
লঞ্জনীপাড়া, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর রোড, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০ হতে প্রকাশিত দৈনিক ডিয়ার্স বিডি টোয়েন্টিফোর ডটকম।
ই-মেইল- dearsbd24@gmail.com
বার্তা বিভাগ 09638959189

খুলনা অফিসঃ
নিরালা মোড়, খুলনা- ৯০০০

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না
| Design Developed & Hosted By- Sundarban IT Ltd |

Share